এডিস মশা নির্মূলে ডিএনসিসি’র চিরুনি অভিযান অব্যাহত

0
158

এডিস মশা নির্মূলে দ্বিতীয় পর্যায়ের ‘বিশেষ পরিচ্ছন্নতা ও চিরুনি অভিযান’ অব্যাহত রয়েছে।
এদিকে ৫ম দিনের মতো আজও ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চলছে বলে জানিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি)।
আজ বৃহস্পতিবার রাজধানী উত্তরায় ভ্রাম্যমান আদালতের চলমান অভিযানে রিপন বড়ুয়া নামে এক ব্যক্তিকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জুলকার নায়নের নেতৃত্বে একটি ভ্রাম্যমাণ আদালত আজ এ অভিযান পরিচালনা করে।
বৃহস্পতিবার বিকেলে ডিএনসিসি’র জনসংযোগ কর্মকর্তা (পিআর) এ এস.এম. মামুন আজ বাসসকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
তিনি জানান, দ্বিতীয় পর্যায়ের চিরুনি অভিযানের পঞ্চম দিনে আজ পরিচ্ছন্নতা ও মশক নিধনকর্মীরা ডিএনসিসির ৩৬টি ওয়ার্ডে ১০ হাজার ২১২টি বাড়ি ও স্থাপনা পরিদর্শন করে মোট ৩৯টি বাড়ি ও স্থাপনায় এডিস মশার লার্ভা খুঁজে পায়। এ ছাড়া ৬ হাজার ৪৯টি বাড়ি ও স্থাপনায় এডিস মশার বংশবিস্তার উপযোগী স্থান অথবা জমে থাকা পানি পাওয়া যায়। এডিস মশার বংশবিস্তারের উপযোগী এ সকল স্থান ধ্বংস করা হয়। ডিএনসিসির প্রতিটি ওয়ার্ডের সংশ্লিষ্ট কাউন্সিলররা ‘চিরুনি অভিযান’ সক্রিয়ভাবে তত্বাবধান করছেন।
রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানার উত্তরা ৫ নম্বর সেক্টরের একটি বাসায় এডিস মশার লার্ভা, এডিস মশা বংশবিস্তার উপযোগী পরিবেশ এবং নোংরা, ময়লা-আবর্জনা খুঁজে পায় ডিএনসিসি। এসময় রিপন বড়ুয়া নামে এক ব্যক্তিকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জুলকার নায়নের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত এ জরিমানা করেন।
ডিএনসিসি সূত্রে জানা যায়, গত ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হওয়া দ্বিতীয় দফা চিরুনি অভিযানে আজ পর্যন্ত ৩৬টি ওয়ার্ডে সর্বমোট ৫১ হাজার ৩১১টি বাড়ি ও স্থাপনা পরিদর্শন করে মোট ১৭৭টি বাড়ি ও স্থাপনায় এডিস মশার লার্ভা খুঁজে পাওয়া যায়। এ ছাড়া ৩০ হাজার ১৩৩টি বাড়ি ও স্থাপনায় এডিস মশার বংশবিস্তার উপযোগী স্থান/জমে থাকা পানি পাওয়া যায়। সেসব স্থানগুলো ধ্বংস করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here